Header Border

ঢাকা, বুধবার, ১৭ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ (শরৎকাল) ৩০.৯৬°সে
শিরোনাম:
লক্ষ্মীপুরে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের পক্ষে থেকে পুলিশ সুপারকে বিদায় সংবর্ধনা লক্ষ্মীপুরে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের পক্ষে থেকে পুলিশ সুপারকে বিদায় সংবর্ধনা লক্ষ্মীপুরে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে আ’লীগের বিক্ষোভ মিছিল ও আলোচনা সভা লক্ষ্মীপুরে সাংবাদিক রনির পিতার মৃত্যু লক্ষ্মীপুরে মাকে পিটিয়েছে পুত্র? বিচারে বকাবকি করায় ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অপপ্রচার লক্ষ্মীপুরে পদায়ন হওয়া পুলিশ সুপার মাহফুজ্জামানকে রংপুর রেঞ্জ থেকে বিদায় সংবর্ধনা লক্ষ্মীপুরে জুলাই মাসে শ্রেষ্ঠ ওসি রামগঞ্জ থানার ইন্সপেক্টর এমদাদুল হক দালাল বাজার আ’লীগের উদ্যোগ শোক দিবসে আলোচনা সভা, দোয়া ও মিলাদ মাহফিল কমলনগরে শোক দিবসে বঙ্গবন্ধু প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, আলোচনা সভা ও কাঙ্গালি ভোজ অনূর্ধ্ব-১৯ জাতীয় দলের প্রাথমিক স্কোয়াডে লক্ষ্মীপুরের রুপম

রায়পুরে ৩৬টি অবৈধ করাতকল গিলে খাচ্ছে সবুজ বন!

লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলায় বিনা লাইসেন্সে গড়ে ওঠা ৩৬টি করাতকলে দিনরাত শতশত ফুট গাছ চিড়াই হচ্ছে। যার বেশীর ভাগ কাঠ সংগ্রহ করা হয় স্থানীয় সবুজ বেষ্টনীর গাছগুলো চুরি করে কেটে। করাতকল স্থাপন ও পরিচালনার ক্ষেত্রে পালনীয় শর্তাদির কোনটিই তোয়াক্কা করছেনা এসব অবৈধ করাতকলগুলো। স্থানীয় বনবিভাগ ও প্রশাসন এ ব্যাপারে উদাসিনতা দেখাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন সবুজবেস্টনীর উপকার ভোগীরা।


খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, উপজেলায় ৫০টি করাতলের মধ্যে মাত্র ১৪টির লাইসেন্স রয়েছে। বাকি ৩৬টি অবৈধভাবে চলছে। আরও ১৮টি করাতকল স্থাপনের জন্য নতুন করে আবেদন করা হয়েছে। অবৈধভাবে গড়ে ওঠা করাতকলের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। সরকারি বিধিমালায় সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত এগুলো চালু করার নিয়ম থাকলেও এ কল চালানো হচ্ছে ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত। কোথাও কোথাও বিদ্যুৎ-সংযোগ না পেয়ে শ্যালো ইঞ্জিনচালিত জেনারেটরের সাহায্যে চালানো হচ্ছে। শ্যালো ইঞ্জিন ও করাতকলের বিকট শব্দে সেখানে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা কঠিন হয়ে পড়েছে। এ নিয়ে অভিযোগ করেও ভুক্তভোগীরা কোনো প্রতিকার পাননি বলে জানা গেছে।


এ ছাড়া করাতকল স্থাপনের জন্য দুই হাজার টাকা জমা দিয়ে বন বিভাগে লাইসেন্সের জন্য আবেদন করতে হয়। লাইসেন্স পেলে পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র প্রয়োজন হয়। আবার সংরক্ষিত, রক্ষিত, অর্পিত বা অন্য যেকোনো ধরনের সরকারি বনভূমির সীমানা থেকে নূন্যতম ১০ কিলোমিটারের মধ্যে করাতকল স্থাপন করা যাবে না বলে বিধান রয়েছে। সরকারি অফিস-আদালত, শিল্পপ্রতিষ্ঠান, হাসপাতাল, স্বাস্থ্যকেন্দ্র ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, বিনোদন পার্ক, উদ্যান ও জনস্বাস্থ্য বা পরিবেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ কোনো স্থানের ২০০ মিটারের মধ্যে করাতকল স্থাপন করা যাবে না। এ আইন কার্যকর হওয়ার আগে নিষিদ্ধ স্থানে করাতকল স্থাপন করা হয়ে থাকলে আইন কার্যকরের তারিখ থেকে ৯০ দিনের মধ্যে সেগুলো বন্ধ করে দিতে হবে।
সরেজমিনে দেখা গেছে, উত্তর চরবংশী, দক্ষিণ চরবংশী, চরমোহনা, চরআবাবিল, কেরোয়া, বামনী, চরপাতা, সোনাপুর, রায়পুর ইউনিয়ন ও বেড়িবাঁধ এলাকায় রয়েছে বেশ কয়েকটি করাতকল। এসব করাতকলে কাঠ জোগান দিতে গিয়ে উজাড় হচ্ছে বন বিভাগ তথা বেড়িবাঁধ ও সড়কের দুই পাশের গাছগুলো। তাতে পরিবেশের ওপর পড়ছে বিরূপ প্রভাব। বাসাবাড়ি-হায়দরগঞ্জ সড়কের উদমারা গ্রামের সর্দার স্টেশন নামক স্থানে স্থাপিত একটি করাতকলের মালিক আব্দুল করিম বলেন, করাতকলটি আমি গত দুই বছর ধরে কিনে চালাচ্ছি। প্রশাসনের তেমন চাপ না থাকায় লাইসেন্সের বিষয়টি তেমন গুরুত্ব দিইনি। প্রায় দেড় মাস পূর্বে লাইসেন্স প্রসেসিংয়ের জন্য কাগজপত্র জমা দিয়েছি।


দেবীপুর গ্রামের মিয়াজান ব্যাপারী বাড়ির বাসিন্দা মাসুম বিল্লাহ বলেন, ‘করাতকলের বিকট শব্দে আমরা অতিষ্ঠ। এগুলোর যন্ত্রণায় আমাদের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা ব্যাহত হচ্ছে। আমার বৃদ্ধ মা খুব কষ্টে আছেন। আমার স্ত্রীর পড়ালেখায় বিগ্ন ঘটছে। তাঁদের অসংখ্যবার বলা হলেও তাঁরা শব্দ নিয়ন্ত্রণে কোনো উদ্যোগ নেননি। বরং আমাদের উল্টো ধমক দিচ্ছেন। ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে এগুলো বন্ধ করে দিলেও রহস্যজনকভাবে ওই আদেশ পালন করা হচ্ছে না।’
করাতকল মালিক দেবীপুরের আবুল হোসেন মুন্সী বলেন, ‘বিদ্যুতের সংযোগ পাওয়ার জন্য প্রায় এক বছর চেষ্টা চালিয়ে আসছি। কিন্তু সংযোগ না পাওয়ায় শ্যালো ইঞ্জিন ব্যবহার করতে হচ্ছে। ইচ্ছা থাকলেও বিদ্যুৎ সংযোগ না পেলে শব্দ কমানো সম্ভব নয়। আমাদের মতো অনেকেই জনবসতিপূর্ণ এলাকায় করাতকল চালাচ্ছেন। তাঁদের দোষ না হলে আমাদেরও দোষ নেই।’


বন বিভাগের রায়পুর উপজেলা কর্মকর্তা চন্দন ভৌমিক বলেন, ‘রায়পুরে করাতলের সংখ্যা প্রায় ৫০টি। এর মধ্যে মাত্র ১৪টির লাইসেন্স রয়েছে। নতুনভাবে আবেদন করা হয়েছে ১৮টি। আমাদের না জানিয়েই লোকজন করাতকল স্থাপন করায় এ রকম হ-য-ব-র-ল অবস্থা হচ্ছে। বিধি ভঙ্গ করে স্থাপনকারী করাতকল সম্পর্কে খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

শেয়ার করুন:

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

লক্ষ্মীপুরে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের পক্ষে থেকে পুলিশ সুপারকে বিদায় সংবর্ধনা
লক্ষ্মীপুরে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের পক্ষে থেকে পুলিশ সুপারকে বিদায় সংবর্ধনা
লক্ষ্মীপুরে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে আ’লীগের বিক্ষোভ মিছিল ও আলোচনা সভা
লক্ষ্মীপুরে সাংবাদিক রনির পিতার মৃত্যু
লক্ষ্মীপুরে মাকে পিটিয়েছে পুত্র? বিচারে বকাবকি করায় ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অপপ্রচার
লক্ষ্মীপুরে পদায়ন হওয়া পুলিশ সুপার মাহফুজ্জামানকে রংপুর রেঞ্জ থেকে বিদায় সংবর্ধনা

আরও খবর

সম্পাদক প্রকাশক: এ.কে.এম. মিজানুর রহমান মুকুল