Header Border

ঢাকা, বুধবার, ১৭ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ (শরৎকাল) ৩০.৯৬°সে
শিরোনাম:
লক্ষ্মীপুরে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের পক্ষে থেকে পুলিশ সুপারকে বিদায় সংবর্ধনা লক্ষ্মীপুরে হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের পক্ষে থেকে পুলিশ সুপারকে বিদায় সংবর্ধনা লক্ষ্মীপুরে সিরিজ বোমা হামলার প্রতিবাদে আ’লীগের বিক্ষোভ মিছিল ও আলোচনা সভা লক্ষ্মীপুরে সাংবাদিক রনির পিতার মৃত্যু লক্ষ্মীপুরে মাকে পিটিয়েছে পুত্র? বিচারে বকাবকি করায় ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অপপ্রচার লক্ষ্মীপুরে পদায়ন হওয়া পুলিশ সুপার মাহফুজ্জামানকে রংপুর রেঞ্জ থেকে বিদায় সংবর্ধনা লক্ষ্মীপুরে জুলাই মাসে শ্রেষ্ঠ ওসি রামগঞ্জ থানার ইন্সপেক্টর এমদাদুল হক দালাল বাজার আ’লীগের উদ্যোগ শোক দিবসে আলোচনা সভা, দোয়া ও মিলাদ মাহফিল কমলনগরে শোক দিবসে বঙ্গবন্ধু প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, আলোচনা সভা ও কাঙ্গালি ভোজ অনূর্ধ্ব-১৯ জাতীয় দলের প্রাথমিক স্কোয়াডে লক্ষ্মীপুরের রুপম

শিক্ষকরা অন্য কোনো পেশা না পেয়ে ঘটনা চক্রে শিক্ষকতা পেশায় এসেছে

একজন কলাম লেখক হিসাবে আমি মাননীয় শিক্ষা মন্ত্রী ডা: দিপুমনীর এ বক্তব্যেবর সাথে একমত নই। কারণ আমার বক্তব্যের মাধ্যমে তা তুলে ধরার চেষ্টা করছি। মাননীয় মন্ত্রী আপনি অত্যন্ত সৎ, পরিশ্রমী ও মেধাবী না হলে শিক্ষা মন্ত্রানালয়ের দায়িত্ব পেতেন না একই সাথে আপনি আওয়ামীলীগ এর মত প্রচীন একটি দলের যুগ্ম সম্পাদক দায়িত্ব পালন করছেন। যেইভাবে হোক আপনার উক্ত মন্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। মাননীয় মন্ত্রী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে সাড়া দিয়ে বাঙালি জাতি মহান মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয় অংশগ্রহণ করে 30 লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে ও দুই লাখ মা-বোনের আত্মত্যাগের বিনিময়ে আমরা আমাদের কাঙ্খিত স্বাধীনতা পেয়েছি। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা করা। বাংলাদেশ ক্ষুধামুক্ত দারিদ্র্যমুক্ত হবে ও দুর্নীতিমুক্ত হবে। ও তারা শিক্ষিত হয়ে সারা পৃথিবীতে মাথা উঁচু করে দাঁড়াবে।কিন্তু ঘাতকরা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়িত হতে দেয়নি, কিছু বিপথগামী সেনা সদস্য ও দলের মধ্যে ঘাপটি মেরে থাকা খন্ধকার মোশতাক গংরা 15 ই আগস্ট 1975 সালে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সকল সদস্যকে নির্মমভাবে হত্যা করে। পরবর্তীতে তার সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে ধারণ করে তার অসমাপ্ত কর্মগুলো বাস্তবায়নের নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। বঙ্গবন্ধু ও চার জাতীয় নেতাকে হত্যা করার পর বাংলাদেশের অনেক ক্ষমতার পালা বদল ঘটে। এরপর আমরা দেখলাম চার দলীয় জোট সরকারের আমলে 2001 থেকে 2005 সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ পরপর দুর্নীতিতে বিশ্বে এক নম্বর স্থান অর্জন করে।ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল সূত্রে আমরা তা অবগত হয়েছি। আর বর্তমান সরকারের আমলে Covid 19 এর কারনে আমরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ দিক থেকে বিশ্বের এক নম্বর অবস্থানে আছি।এটা এটা UNESCO সূত্রে আমরা অবগত হয়েছি। মাননীয় মন্ত্রী এবার শিক্ষকদের প্রসঙ্গে আসি। শিক্ষকরা যেকোনো দেশের শিক্ষকদের তুলনায় আমাদের শিক্ষকরা মেধা ও মননে বিশ্বের অন্যান্য শিক্ষকদের তুলনা কোন অংশে কম নয়। । তারা মানুষ গড়ার কারিগর।কারণ তারা প্লেটো সক্রেটিস অ্যারিস্টোটলর উত্তরসূরী। আমাদের শিক্ষকরা মেধা ও মননে বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় কোনো অংশে কম নয়।জাতির বিনির্মাণে তাদের নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।যেমন অর্থ ক্ষমতার দাপটে একজন শহীদুল ইসলাম পাপুল ও তার স্ত্রী মহান জাতীয় সংসদে এমপি বনে যান।কিন্তু কখনো তারা একজন প্রফেসর আনিসুজ্জামান ডঃ মুহাম্মদ শহীদুল্লাহর মতো দেশবরেণ্য শিক্ষক হতে পারবেনা। ক্ষমতার দাপটে লুৎফুজ্জামান বাবর এর মত ব্যক্তি প্রতিমন্ত্রী হয়েছেন। কিন্তু কখন উঠছে জ্ঞানতাপস প্রফেসর

আব্দুর রাজ্জাক হতে পারবে না। এরকম শত শত উদাহরণ দেওয়া যাক। যেমন ডক্টর আব্দুল হাই, আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন প্রফেসর জামাল নজরুল ইসলাম, ডঃ কুদরাত _ই_ খোদা,প্রফেসর আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ, প্রফেসর আব্দুল মতিন চৌধুরী,প্রফেসর রেহমান সোবাহান,প্রফেসর মো মুজাফফর আহমদ চৌধূরী, ডক্টর এ আর মল্লিক, প্রফেসর আর,আই চৌধূরী, প্রফেসর ডঃ মুহাম্মদ ইউনুস, জাতীয় অধ্যাপক ডঃ নুরুল ইসলাম, প্রফেসর ডঃ মুহাম্মদ ইব্রাহীম, প্রফেসর আবদুল্লাহ, ডঃ ওয়াজেদ আলী মিয়া,প্রফেসর ডঃ ওয়াহিদ উদ্দিন মাহমুদ, জাতীয় অধ্যাপক প্রফেসর এ আর খান, প্রফেসর জামিলুর রেজা চৌধুরী, প্রফেসর ডঃ মোহাম্মদ আলী, প্রফেসর জিসি দেব, প্রফেসর আমিনুল ইসলাম,প্রফেসর তারেক শামসুর রহমান, প্রফেসর জিল্লুর রহমান সিদ্দিকী, প্রফেসর ডঃ মুহাম্মদ জাফর ইকবাল, প্রফেসর রওনক জাহান , প্রফেসর এমাজউদ্দীন, প্রফেসর মোফাজ্জল হায়দার চৌধুরী, প্রফেসর কবির চৌধুরী, প্রফেসর ডঃ জোহা, প্রফেসর ডঃ আবদুল মান্নান, প্রফেসর সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী। এরকম শতশত উদাহরণ দেওয়া যায় আমাদের রাজনৈতিক দৈন্যতার কারণে আমরা দুর্নীতি বাজ ব্যক্তিদেরকে এম পি বানাচ্ছি। সকল মাননীয় সংসদ সদস্যারা নয়। বেশির ভাগ এম পিরাই সৎ, আদর্শবান ও দেশ প্রেমিক। মাননীয় মন্ত্রীরা, এমপিরা ও সকল শ্রেনী পেশার মানুষ জন কোনা কোনো শিক্ষকদের ছাত্র – ছাত্রী। মা বাবা সন্তান জন্মদেন কিন্তু শিক্ষকরা তাদেরকে প্রকৃত মানুষ করেন ।

আজিজুর রহমান আযম
অভিবাবক, সাংবাদিক ও কলাম লেখক।
Email:azam.rahman69@gmail.com

শেয়ার করুন:

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেএী শেখ হাসিনাকে অশেষ ধন্যবাদ
কভিড-১৯ এর কারণে বাংলাদেশের সবচেয়ে সংকটের কবলে শিক্ষাখাত
ফিরে আসুক দেশি মাছের প্রাচুর্য
অনন্যার গানের মডেল হলেন তমা মনি
ভারতের প্রধানমন্ত্রী হতে চান প্রিয়াঙ্কা
আবারও টম অ্যান্ড জেরি নিশো-মেহজাবীন

আরও খবর

সম্পাদক প্রকাশক: এ.কে.এম. মিজানুর রহমান মুকুল