Header Border

ঢাকা, শনিবার, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ (শরৎকাল) ২৯.৯৬°সে
শিরোনাম:
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেএী শেখ হাসিনাকে অশেষ ধন্যবাদ কভিড-১৯ এর কারণে বাংলাদেশের সবচেয়ে সংকটের কবলে শিক্ষাখাত শিক্ষকরা অন্য কোনো পেশা না পেয়ে ঘটনা চক্রে শিক্ষকতা পেশায় এসেছে সব মোবাইলের জন্য একই চার্জার বাধ্যতামূলক করার প্রস্তাব গলায় ফাঁস দিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা রামগঞ্জে চা-দোকানদার সামছুল হকের বিচার কান্দে নিরবে রাজশাহীতে মামলার ভয় দেখিয়ে চাঁদাবাজি, দুই কর্মকর্তাসহ ৬ পুলিশ বরখাস্ত রামগঞ্জে ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা-১০ হাজার টাকা মোমিনুর রহমান মামুনকে সরিয়ে আনিসুলকে নতুন কারা মহাপরিদর্শক নিয়োগ মানিকগঞ্জে করোনা উপসর্গ নিয়ে মেধাবী স্কুলছাত্রীর মৃত্যু, এলাকায় শোকের ছায়া

রামগঞ্জের লামচর ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে ফয়জুল্লাহ জিসানকে চায় এলাকার ভোটাররা

আসন্ন ইউপি নির্বাচনে লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলার লামচর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হিসেবে কারা নির্যাতিত ও ক্লিন ইমেজের ত্যাগী আওয়ামী নেতা মো. ফয়জুল্লাহ জিসানকে চায় এলাকার ভোটাররা। লামচর ইউনিয়নের বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ ও আ’লীগের তৃনমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীর সাথে কথা বলে জানাগেছে, স্বৈরাচার পতন আন্দোলনসহ জোট সরকারের সময়ে দলের প্রতিকূল পরিবেশ পরিস্থিতিতে একাধিকবার হামলা-মামলা ও জেল-জুলুম নির্যাতন সহ্য করে রামগঞ্জের রাজপথে জয় বাংলা শ্লোগান দেয়া আওয়ামীলীগের হাতেগনা বলিষ্ঠ কয়েকজন ত্যাগীর অন্যতম হলো এই ফয়জুলাহ জিসান।

তিনি ছাত্র জীবন থেকে দলের সক্রীয় কর্মী হিসেবে ১৯৮৬ সনে ফতেহপুর ফাজিল মাদ্রাসার ছাত্রলীগের সভাপতি হন। পর্যায়ক্রমে নানান সময়ে তিনি রামগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও সাধারন সম্পাদক, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি, লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামী স্বেচ্ছা সেবকলীগের যুগ্ম আহবায়ক, রামগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদকের দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করে প্রায় ৩৮ বছর যাবৎ বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের দলীয় একজন সক্রিয় কর্মী হিসেবে বিভিন্ন সময়ে হামলা-মামলা ও জেল-জুলুম নির্যাতনের স্বীকার হয়ে এখনও দলের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন।

বীরমুক্তিযোদ্ধা মরহুম তোফায়েল আহম্মেদ ভুঁইয়ার পুত্র ৯০ দশকের ছাত্রলীগ নেতা খালেদ হোসেন ভূইয়া বলেন, রামগঞ্জে জয়বাংলা শ্লোগান দিলে যখন মামলা- হামলার স্বীকার হতে হত তখন দেওয়ান বাচ্ছু, বেলাল আহমেদ, আকবর হোসেন, আবু সুফিয়ান ভুঁইয়া, ফয়েজ উল্যাহ জিসান, মনির হোসেন খোকন, মনির হোসেন নিক্সনসহ আমরা অল্প সংখ্যক ছাত্রলীগ ও যুবলীগ নেতাকর্মীর জীবনবাজি রেখে ছাত্রলীগ করে বহুবার হামলা- মামলার স্বীকার হয়েও রাজপথ ছাড়ি নাই৷ এখনতো সুসময় বহু নেতাকর্মীর আগমন ঘটছে, এটাই স্বাভাবিক৷ তবুও দলের দুঃসময়ের একজন ত্যাগী নির্যাতিত কর্মী হিসেবে ফয়েজ উল্যা জিসান দলীয় মনোয়ন পাওয়ার দাবীদার৷

রামগঞ্জ উপজেলার লামচর ইউনিয়নের দক্ষিণ হাজীপুর গ্রামের পাটওয়ারী বাড়ীর মরহুম রফিক উল্লাহ পাটওয়ারীর সন্তান মো. ফয়জুল্লাহ জিসান পানপাড়া উচ্চ বিদ্যালয় এন্ড কলেজের সহ-সভাপতি, উপজেলা ক্রীড়া সংস্থা’র সাধারন সম্পাদক, উত্তর তেমহনী ইবতেদায়ী মাদ্রাসার সহ- সভাপতিসহ বহু সামাজিক ও উন্নয়ন কর্মকান্ডে নিয়োজিত থেকে এবং করোনাকালিন সময়ে গরীব- অসহায়দের সাহায্য সহযোগিতা করে আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হিসেবে জনপ্রিয়তার শীর্ষে আছেন বলে জানান লামচর ইউনিয়নের দলের বিভিন্ন ইউনিটের নেতাকর্মী ও সাধারন মানুষ।

ইউনিয়নের পানপাড়া হাই স্কুল এন্ড কলেজের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক ও ৭নং ওয়ার্ডস্হ রসুলপুর এলাকার ভোটার মজিব উল্লাহ মাস্টার বলেন, আমার দৃষ্টিতে আসন্ন লামচর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ফয়জুল্লাহ জিসানের জনপ্রিয়তা সবচেয়ে বেশি।

ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সহসভাপতি ফারুক বলেন, কর্মীবান্ধব ও দলের জন্য ত্যাগী ফয়জুল্লাহ জিসানের হাত ধরে আমি ১৯৮৬ সনে আওয়ামী রাজনীতিতে প্রবেশ করি, আমার জানা মতে আসন্ন ইউপি নির্বাচনে ফয়জুল্লাহ জিসানের বিকল্প লামচরে ইউনিয়নে অন্য কেহ নাই।
লামচর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সহসভাপতি মহসিন ভুঁইয়া বলেন, দলের দুঃসময়ে এলাকার গরীব অসহায়দের অনেক দান খয়রাত করার কারনে ত্যাগী আওয়ামী নেতা ফয়জুল্লাহ জিসানের জনপ্রিয়তা অনেক বেশি।
রামগঞ্জ উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারন সম্পাদক ও লামচর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের ভোটার ডাক্তার হারিছ বলেন, ফয়জুল্লাহ জিসান ছোটবেলা থেকে অনেক ত্যাগী নেতা। আসন্ন ইউপি নির্বাচনে আমাদের জাতীয় পার্টির ক্যান্ডিডেট না থাকলে আমরা ফয়জুল্লাহ জিসানকে সাপোর্ট করবো।

লামচর ইউনিয়নের প্যানেল চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্য আমির হোসেন বলেন, আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আমাদের লামচরে ফয়জুল্লাহ জিসান প্রার্থী হিসেবে অনেক ত্যাগী ও জনপ্রিয়, আমি নিজে ভোট না করলে ফয়জুল্লাহ জিসানকে সাপোর্ট দিবো।
লামচর ইউনিয়নের ৫ ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি ডাক্তার আয়াতুল্লাহ বলেন, ফয়জুল্লাহ জিসান খুব ভালো লোক, তার কোন পিছুটান নাই, আমরা দলমত নির্বিশেষে সরকার বাহাদুরের কাছে আসন্ন নির্বাচনে ফয়জুল্লাহ জিসানকে মনোনয়ন দেয়ার জন্য আমাদের ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে দাবী জানাই।

ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক মকবুল হোসেন বলেন, আসির দশকে আওয়ামী রাজনীতি শুরু করে ফয়জুল্লাহ জিসান এখন পর্যন্ত শুধু
দিয়ে গেছেন দল থেকে কিছু নেন নাই। তাই আসছে ইউপি নির্বাচনে ফয়জুল্লাহ জিসানের জনপ্রিয়তার ধারে-কাছে কোনো প্রার্থী নাই।

লামচর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সদস্য ও ৮নং ওয়ার্ড এলাকার ভোটার ডাক্তার হোসেন বলেন, আসন্ন নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে লোকমুখে ফয়জুল্লাহ জিসানের কথা বেশি শুনা যায়। এছাড়া স্থানীয় আওয়ামীলীগের বিভিন্ন ইউনিটের নেতাকর্মী ও নানান শ্রেণী পেশার মানুষ ফয়জুল্লাহ জিসানকে নৌকা প্রতীক দিতে দলীয় মনোনয়ন বোর্ড বরাবরে মিডিয়ার মাধ্যমে দাবি জানান।

লামচর ইউনিয়নের পানপাড়া- হাজীপুর এলাকার ভোটার ও ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি হারুনর রশীদ বলেন, বর্তমান চেয়ারম্যান এলাকার উন্নয়নে কোনো কাজ করেনি। তবে ফয়জুল্লাহ জিসান চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে আমাদের এলাকায় অনেক উন্নয়নমূলক কাজ হবে এবং জনসাধারনের অনেক উপকার হবে বলে আমি বিশ্বাস করি।
ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি ও ইউপি সদস্য মো. জহিরুল ইসলাম বলেন, ফয়জুল্লাহ জিসান আমাদের লামচর ইউনিয়ন ও রামগঞ্জের জনপ্রিয় ব্যক্তি। তিনি ছাত্রজীবন থেকেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শের রাজনীতির একজন সক্রিয় কর্মী থেকে নানান সময়ে জেল-জুলুম ও হামলা- মামলায় নির্যাতিত হয়ে দলের জন্য অনেক ত্যাগ স্বীকার করেন। অন্যান্য প্রার্থীদের তুলনায় চেয়ারম্যান পদে জনপ্রিয়তায় ফয়েজুল্লাহ জিসান একনম্বরে আছেন বলে আমি মনে করি।

ইউনিয়নের হোসনাবাদ এলাকার ভোটার ও ৫নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি সাবেক ইউপি সদস্য মো. আবু তাহের বলেন, ফয়জুল্লাহ জিসান ছোটবেলা থেকে এখন পর্যন্ত আওয়ামীলীগ দলীয় একজন ত্যাগী কর্মী হিসেবে সব সময় দলের জন্য দিয়ে যাচ্ছেন কিন্তু দল থেকে কিছু নেন নাই। তাই আমরা ফয়জুল্লাহ জিসানকে লামচর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চাই।

ইউনিয়নের রসুলপুর এলাকার ভোটার ও ৭নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক তসলিম ভুঁইয়া বলেন, আওয়ামীলীগের জন্য ফয়জুল্লাহ জিসানের বহু ত্যাগ ও শ্রম আছে। তিনি বহুবার দলের জন্য জেল-জুলুম ও নির্যাতনের স্বীকার হয়েছেন। উনার ভিতরে কোনো জিনিসের প্রতি লোভ-লালসা নাই, আমাদের লামচর ইউনিয়নে ভবিষ্যত চেয়ারম্যান হিসেবে তিনিই সবচেয়ে যোগ্য ব্যক্তি।

লামচর ইউনিয়নের পানপাড়া বাজারের ব্যবসায়ী মোহাম্মাদ হারুন বলেন, দল মত নির্বিশেষ ফয়জুল্লাহ জিসানের মত একজন জনপ্রিয় ব্যক্তি আমাদের ইউনিয়নে চেয়ারম্যান হলে এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন হবে বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস।

ইউনিয়নের দক্ষিণ কালিকাপুর এলাকার ভোটার ও ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মো. আবুল কাসেম বলেন, ফয়জুল্লাহ জিসান অত্যান্ত উদার মনের মানুষ ও ভালো ব্যক্তি। আমি এলাকার অনেকের সাথে কথা বলে দেখেছি। উনি নৌকা মার্কা পেলে জনগন উনাকে ভোট দিবে। আমার ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতিসহ অন্যান্যরাও ফয়জুল্লাহ জিসানকে চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রার্থী হিসেবে দেখতে চায়। এছাড়া স্থানীয় আওয়ামীলীগের বিভিন্ন ইউনিটের নেতাকর্মী ও নানান শ্রেণী পেশার মানুষ ফয়জুল্লাহ জিসানকে নৌকা প্রতীক দিতে দলীয় মনোনয়ন বোর্ড বরাবরে মিডিয়ার মাধ্যমে দাবি জানান।

মো. ফয়জুল্লাহ জিসান জানান, বাঙালি জাতির মুক্তি আন্দোলনের মহানায়ক, স্বাধীন বাংলাদেশ রাষ্ট্রের স্থপতি, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সুখী ও সমৃদ্ধশালী বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে নিয়ে আমি এলাকার সাধারন মানুষের সেবামূলক কাজে নিয়োজিত রয়েছি। আমার বিশ্বাস যেমনটি তৃনমূল আওয়ামীলীগসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার ভোটারা আমাকে ভালবাসেন ঠিক তেমনটি মনোনয়ন বোর্ড আমাকে নৌকা প্রতীক দিবে বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস।

শেয়ার করুন:

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

রামগঞ্জে চা-দোকানদার সামছুল হকের বিচার কান্দে নিরবে
রামগঞ্জে ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা-১০ হাজার টাকা
লক্ষ্মীপুরে ইউপি কমপ্লেক্স ভবন ও বিদ্যালয়ের নবনির্মিত ভবন উদ্বোধন
সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে সরকার বদ্ধ পরিকর: এমপি নয়ন
লক্ষ্মীপুর জেলা যুবলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে নেতাকর্মীদের পেটানোর অভিযোগ
চার বছরে কাজ হয়েছে মাত্র ৪৮ ভাগ! ৩৪ বিদ্যালয় নির্মাণ কাজের মাঝ পথে উধাও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান

আরও খবর

সম্পাদক প্রকাশক: এ.কে.এম. মিজানুর রহমান মুকুল