Header Border

ঢাকা, শনিবার, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ (শরৎকাল) ২৯.৯৬°সে
শিরোনাম:
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেএী শেখ হাসিনাকে অশেষ ধন্যবাদ কভিড-১৯ এর কারণে বাংলাদেশের সবচেয়ে সংকটের কবলে শিক্ষাখাত শিক্ষকরা অন্য কোনো পেশা না পেয়ে ঘটনা চক্রে শিক্ষকতা পেশায় এসেছে সব মোবাইলের জন্য একই চার্জার বাধ্যতামূলক করার প্রস্তাব গলায় ফাঁস দিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা রামগঞ্জে চা-দোকানদার সামছুল হকের বিচার কান্দে নিরবে রাজশাহীতে মামলার ভয় দেখিয়ে চাঁদাবাজি, দুই কর্মকর্তাসহ ৬ পুলিশ বরখাস্ত রামগঞ্জে ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা-১০ হাজার টাকা মোমিনুর রহমান মামুনকে সরিয়ে আনিসুলকে নতুন কারা মহাপরিদর্শক নিয়োগ মানিকগঞ্জে করোনা উপসর্গ নিয়ে মেধাবী স্কুলছাত্রীর মৃত্যু, এলাকায় শোকের ছায়া

পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে লাশ হস্তান্তরে ঘুস দাবি, ওসির বিরুদ্ধে তদন্ত

পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ থানার ওসির বিরুদ্ধে অপমৃত্যুর লাশ হস্তান্তরে ২০ হাজার টাকা ঘুস দাবি ও নিহতের স্বজনদের মারধরসহ আটকের ঘটনায় গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর ওসি মো. মহিববুল্লাহর বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়েছে। ১৩ সেপ্টেম্বর সোমবার দুপুরে মির্জাগঞ্জ থানা পরিদর্শন শেষে বেতাগী থানায় নিহত আবুল বাশারের স্বজনদের সঙ্গে কথা বলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল,পটুয়াখালী) মো. শামীম। এরপর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন তিনি। পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন এবং সঠিক তদন্তের স্বার্থে তাদের সহযোগিতা চান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শামীম।

তদন্তের ব্যাপারে বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে জানতে চাইলে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শামীম বলেন, এ ব্যাপারে সংবাদকর্মীদের বক্তব্য দিতে আমরা অনিচ্ছুক।

তবে স্বজনদের সঙ্গে কথা হলে তারা জানান, আমাদের সঙ্গে সেদিন রাতে যা যা হয়েছে আমরা তাই বলেছি, পুলিশ তা ভিডিও করেন এবং আমাদের তদন্তকারী কর্মকর্তা আশ্বাস প্রদান করেছেন এর সঠিক বিচার হবে।

উল্লেখ্য, বরগুনার বেতাগীতে আমড়া পাড়তে গিয়ে গাছ থেকে পড়ে আবুল বাশার নামের এক ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়। গুরুতর আহতাবস্থায় পার্শ্ববর্তী মির্জাগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন ও সংশ্লিষ্ট থানায় জানান। পরে হাসপাতালে পুলিশ এসে স্বজনদের থানায় ডেকে নিয়ে লাশ হস্তান্তর বাবদ ২০ হাজার টাকা ঘুস দাবি করেন মির্জাগঞ্জ থানার ওসি মো. মহিববুল্লাহ।

পরে স্বজনরা টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে নিতে চান পুলিশ। স্বজনরা বাধা দিলে তাদের মারধর করেন। পরে লাশ নিয়ে শুরু হয় টানাহেঁচড়া।

এ ঘটনায় ওই থানার এসআই সাইফুল ইসলাম মারধর করেন নিহতের দুই স্ত্রী নাজমা ও হাওয়া বেগমকে। পরে পরিস্থিতি সামাল দিতে না পেরে রাত ৩টায় সাদা কাগজে স্বজনদের স্বাক্ষর রেখে লাশ হস্তান্তর করেন মির্জাগঞ্জ থানার ওসি মহিববুল্লাহ।

শেয়ার করুন:

আপনার মতামত লিখুন :

আরও পড়ুন

সব মোবাইলের জন্য একই চার্জার বাধ্যতামূলক করার প্রস্তাব
গলায় ফাঁস দিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর আত্মহত্যা
রাজশাহীতে মামলার ভয় দেখিয়ে চাঁদাবাজি, দুই কর্মকর্তাসহ ৬ পুলিশ বরখাস্ত
মোমিনুর রহমান মামুনকে সরিয়ে আনিসুলকে নতুন কারা মহাপরিদর্শক নিয়োগ
মানিকগঞ্জে করোনা উপসর্গ নিয়ে মেধাবী স্কুলছাত্রীর মৃত্যু, এলাকায় শোকের ছায়া
নোয়াখালীতে হাইয়েস মাইক্রোতে এয়ার সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ২ পুলিশ কনস্টেবল দগ্ধ

আরও খবর

সম্পাদক প্রকাশক: এ.কে.এম. মিজানুর রহমান মুকুল